জৈব সুরক্ষা বলয়ে মুশফিক-মাহমুদউল্লাহরা



স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
মুশফিকুর রহিম-মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ

মুশফিকুর রহিম-মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ

  • Font increase
  • Font Decrease

আরেকটি ক্রিকেট উৎসবের জন্য প্রস্তুত মিরপুরের শেরেবাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়াম। মঙ্গলবার শুরু পাঁচ দলের বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপ। তার আগে শনিবার জৈব সুরক্ষা বলয়ে প্রবেশ করলেন ক্রিকেটাররা। দেশে যখন করোনার দ্বিতীয় আসবে শোনা যাচ্ছে তখনই মাঠে ক্রিকেট। বাড়তি সতর্কতা তো থাকবেই।

অবশ্য টুর্নামেন্ট চলাকালীন সময়ের পুরোটাতেই চলবে কোভিড ১৯ টেস্ট। প্রায় ৪০০ করোনা পরীক্ষা করানো হবে। রুটিন ওয়ার্ক হিসেবেই এমনটা করবে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)।

এর আগে গত শুক্রবার টুর্নামেন্টের পাঁচটি দলের ক্রিকেটাররা করোনা পরীক্ষার নমুনা দিয়েছেন। এরমধ্যে মিনিস্টার গ্রুপ রাজশাহী, ফরচুন বরিশাল, জেমকন খুলনার কোনো ক্রিকেটারের পজিটিভ ফল আসেনি। গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্সের মাহমুদুল হাসান জয় করোনা আক্রান্ত। এ অবস্থায় গাজী গ্রুপ অপেক্ষা করতে পারে অথবা প্লেয়ার্স ড্রাফটের তালিকা থেকে একই ক্যাটাগরি থেকে ক্রিকেটার নিতে পারবে।

এরমধ্যে নেগেটিভ হওয়া মুশফিকুর রহিম আর মাহমুদউল্লাহ রিয়াদরা পরীক্ষা চলে গেলেন জৈব সুরক্ষা বলয়ে।

টুর্নামেন্ট চলাকালীন হোটেল থেকে মাঠ এবং মাঠ থেকে হোটেলে এই সুরক্ষা বলয়ের মধ্যেই থাকবেন ক্রিকেটাররা। পাঁচ দলের ৮০ ক্রিকেটারের পাশাপাশি এ টুর্নামেন্টে সরাসরি যুক্ত থাকবেন তিনশর বেশি জনবল। টিম ম্যানেজমেন্ট, ম্যাচ অফিসিয়াল, কর্মকর্তা, ব্রডকাস্টকর্মী, ধারাভাষ্যকার, মাঠকর্মী আর নিরাপত্তা রক্ষী।

টুর্নামেন্ট চলাকালীন কেউ করোনায় আক্রান্ত হলে জাতীয় ক্রীড়াপল্লী আর জাতীয় সুইমিংপুলের হোস্টেলে আইসোলেশন সেন্টারে রাখা হবে। নেগেটিভ ক্রিকেটাররা উঠছেন হোটেল সোনারগাঁওয়ে।