ক্যাপ্টেন্সির চাপ! ওটা সাংবাদিকদের বানানো: তামিম



স্পোর্টস এডিটর, বার্তা২৪.কম
তামিম ইকবাল

তামিম ইকবাল

  • Font increase
  • Font Decrease

ওয়ানডে দলের অধিনায়কত্ব পাওয়ার পর থেকে এখন পর্যন্ত তামিম ইকবাল আন্তর্জাতিক কোন ম্যাচই খেলেননি।

খেলবেন কিভাবে?

দলই যে এই সময়টায় কোন ম্যাচ খেলেনি। করোনা মহামারির কালে আন্তর্জাতিক ম্যাচ যে বাংলাদেশের আর খেলাই হয়ে উঠেনি। তাই তামিম ইকবালের অধিনায়কত্ব এখনো কোন পরীক্ষার সামনে পড়েনি। অথচ সেই তামিমকে প্রায় সময় অধিনায়কত্ব নিয়ে অনেক প্রশ্নের উত্তর দিতে হয়! শুনতে হচ্ছে নানান সন্দেহসূচক ধারণা! তামিমের অধিনায়কত্ব প্রসঙ্গে বাজারে চালু একটা ধারণা ছড়িয়ে দেয়া হয়- ‘ওর মধ্যে অধিনায়কত্বের বিষয়বস্তুু নেই!’ ঘরোয়া ক্রিকেটে তামিমের অধিনায়কত্বের সাফল্যে ব্যর্থতার যোগ-বিয়োগ করে অনেকে এই আগাম ধারণায় পৌঁছে গিয়েছেন।

দীর্ঘমেয়াদের জন্য আনুষ্ঠানিকভাবে দায়িত্ব পাওয়ার পর এখনো ‘নতুন অধিনায়ক’ হিসেবে কোন ম্যাচ না খেললেও তামিমকে এদিন আবার শুনতে হলো- ‘অধিনায়কত্ব কি আপনার জন্য কোন চাপ?’

তামিমের কাছে এই প্রশ্নকে মনে হলো ওভারপিচে পড়া বল যেন! পা বাড়িয়ে দারুণ ক্লাসিক কাভার ড্রাইভ খেলার ভঙ্গিতে বলকে বাউন্ডারি পাঠানোর মেজাজ নিয়ে তামিম বললেন- ‘অধিনায়কত্বের প্রেশার! আমি তো এখনো পর্যন্ত ওই রকম কোনো ম্যাচই খেলি নাই। ওটা প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ ম্যাচ হতে হবে তো? অধিনায়কত্বের চাপ এটা আসলে আপনাদের (সাংবাদিকদের) বানানো। আমি এখনো কোন আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলি নাই (আনুষ্ঠানিকভাবে অধিনায়কত্ব পাওয়ার পর)। আমি যেদিন অধিনায়কত্ব পেয়েছি ওই দিন বলেছি যে ক্যাপ্টেন্সি আপনারা জাজ করবেন ছয় মাস বা এক বছর পর। ওইটা পৃথিবীর যত বড় অথবা ছোট লিডার হোক, তার ক্ষেত্রে এটাই প্রযোজ্য। আর দুই ম্যাচ তিন ম্যাচ পর আপনারা শুরু করেন, ক্যাপ্টেন্সি প্রেশার কিনা? একটা বাচ্চা হাঁটতে কিন্তু নয় মাস সময় লাগে। একদিনে সে না হাঁঁটলে তো আপনি বলতে পারেন না। খেলায় আমার অধিনায়কত্ব কতটা প্রভাব ফেলছে সেটা অন্তত বিশ ম্যাচ পর জাজ কইরেন। দুই তিন ম্যাচ পর সেটা করতে পারেন না।’

বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপে তামিম ইকবাল খেলছেন ফরচুন বরিশালের হয়ে। দলের অধিনায়কও তিনি। সামনের কিছু সময়ে অধিনায়কত্ব নিয়ে ‘অজনপ্রিয়’ প্রশ্নটা যেন আর না শুনতে হয় সেজন্য বিস্তারিত ব্যাখ্যায় তামিম জানিয়ে দিলেন- ‘ক্যাপ্টেন্সি আমার কোনো সমস্যা হয় না ভাই। আমি ওটা নিয়ে এত চিন্তা করি না। আমি ক্যাপ্টেন্সি যে জিনিস এটা অনেকবারই বলেছি। এটা আমি ছোটবেলা থেকেই স্বপ্ন দেখি নাই এই দেশের অধিনায়কত্ব করার। এখন সুযোগ এসেছে আমার কাছে। চেষ্টা করবো পুরোপুরিভাবে করতে। ভালো হবে কি খারাপ হবে সেটা সময় বলবে।’